ভারতের আইনবিভাগ

ভারতের আইনবিভাগ 

Parliament of India
ভারতের সংসদ ভবন 

আধুনিক রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গ থাকে। সেগুলি হল-
১) আইন বিভাগ
২) শাসন বিভাগ
৩) বিচার বিভাগ
  আইনবিভাগের কাজ আইন প্রণয়ন করা। আধুনিক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে (যেমন, ভারতে) নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা আইন তৈরি করেন। শাসন বিভাগের কাজ উক্ত আইন বলবৎ করে সুষ্ঠুভাবে রাষ্ট্রকার্য পরিচালনা করা। আর, আইনের অন্যথা ঘটলে তার বিচার করার জন্য থাকে বিচার বিভাগ।
ভারতের আইনবিভাগ-
  প্রথমেই বলে রাখি, ভারত একটি যুক্তরাষ্ট্র। ভারতে দু’রকমের সরকার বর্তমান- ১) রাজ্য সরকার এবং ২) কেন্দ্র সরকার। আইনসভাও দু’রকমের। রাজ্যস্তরে রাজ্য আইনসভা এবং কেন্দ্রে রয়েছে কেন্দ্রীয় আইনসভা। সংবিধানে স্পষ্ট করে বলা আছে যে কোন আইনসভায় কোন আইন তৈরি হবে। এখানে আমরা ভারতের আইনবিভাগ নিয়ে সংক্ষিপ্ত অথচ গুরুত্বপুর্ণ আলোচনা করব। চাকরির পরীক্ষার জন্য যতটা জানা জরুরী তার থেকে একটু বেশিই আলোচনা করা হয়েছে যাতে সকলেই বিষয়টি নিজের মতো করে বুঝতে পারে।
রাজ্য আইনসভা-
  রাজ্য আইনসভা বলতে বোঝায় বিধানসভা এবং বিধান পরিষদ। এই প্রসঙ্গে বলে রাখি, রাজ্যের আইনসভাগুলি এককক্ষবিশিষ্ট হতে পারে আবার দ্বি-কক্ষবিশিষ্টও হতে পারে। যেসব রাজ্যে দুটি কক্ষ রয়েছে তাদের নিম্নকক্ষটিকে বলা হয় বিধানসভা এবং উচ্চকক্ষটিকে বলা হয় বিধান পরিষদ। বিধানসভা জনগনের দ্বারা প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত সদস্যদের নিয়ে গঠিত হয়, অপরদিকে বিধানসভার সদস্যগণ পরোক্ষ ভোটে নির্বাচিত হন।
  ভারতে বর্তমানে ছটি রাজ্যে দ্বিকক্ষবিশিষ্ট আইনসভা রয়েছে  অর্থাৎ বিধানসভা এবং বিধান পরিষদ দুটি কক্ষ রয়েছে এবং বাকি বাইশটি রাজ্যে আইন প্রণয়নের জন্য শুধুমাত্র বিধানসভা রয়েছে। যেসব রাজ্যে বিধান সভা এবং বিধান পরিষদ দুটি কক্ষই রয়েছে সেগুলি হল- অন্ধ্র প্রদেশ, বিহার, কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা এবং উত্তর প্রদেশ।
কেন্দ্রীয় আইনসভাঃ পার্লামেন্ট বা সংসদ
ভারতের কেন্দ্রীয় আইনসভা দ্বিকক্ষবিশিষ্ট- নিম্নকক্ষের নাম লোকসভা এবং উচ্চকক্ষের নাম রাজ্যসভা। ভারতের কেন্দ্রীয় আইনবিভাগের তিনটি অঙ্গ, যথা-
১) রাষ্ট্রপতি- যেকোনো আইন প্রনয়ন করার জন্য রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর প্রয়োজন। তাই ভারতের রাষ্ট্রপতি কেন্দ্রীয় আইনবিভাগের অবিচ্ছেদ্দ অঙ্গ।

২) লোকসভা- জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত;
  • সভার স্থায়িত্বকাল- ৫ বছর ;
  • সংবিধান নির্দিষ্ট সদস্যসংখ্যা- ৫৫২ ;
  • বর্তমানে সদস্য সংখ্যা- ৫৪৫ ;
  • নির্বাচিত/ মনোনীত সদস্যসংখ্যা- ৫৪৩ জন নির্বাচিত এবং ২জন ইঙ্গ-ভারতীয় সম্প্রদায় থেকে রাষ্ট্রপতি দ্বারা নির্বাচিত সদস্য ;
  • সদস্য হওয়ার জন্য ন্যুনতম বয়স- ২৫ বছর ;
  • সদস্যদের কার্যকালের মেয়াদ- সাধারণত ৫ বছর;
  • সভা পরিচালনা করেন- অধ্যক্ষ বা স্পিকার। 
৩) রাজ্যসভা- রাজ্যগুলির প্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত;
  • সভার স্থায়িত্বকাল- রাজ্যসভা একটি স্থায়ী কক্ষ;
  • সংবিধান নির্দিষ্ট সদস্যসংখ্যা- ২৫০;
  • বর্তমানে সদস্য সংখ্যা- ২৪৫ ;
  • নির্বাচিত/ মনোনীত সদস্যসংখ্যা- ২৩৩ জন নির্বাচিত এবং  ১২ জন নির্বাচিত;
  • সদস্য হওয়ার জন্য ন্যুনতম বয়স- ৩০ বছর।
  • সদস্যদের কার্যকালের মেয়াদ- ৬ বছর।
  • সভা পরিচালনা করেন- ভারতের মহামান্য উপরাষ্ট্রপতি পদাধিকার বলে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বা সভাপতি।
বিভিন্ন রাজ্য থেকে লোকসভা এবং রাজ্যসভায় নির্বাচিত সদস্যের সংখ্যা

রাাজ্য/ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চললোকসভার সদস্য সংখ্যা রাজ্যসভার সদস্য সংখ্যা
অন্ধ্রপ্রদেশ২৫১১
অরুণাচল প্রদেশ১১
অসম১৪
উত্তরপ্রদেশ৮০৩১
উত্তরাখণ্ড
ওড়িশা২১১০
কর্ণাটক২৮১২
কেরল২০
গুজরাট২৬১১
গোয়া
ছত্তীসগঢ়১১
জম্মু ও কাশ্মীর
ঝাড়খণ্ড১৪
তামিলনাড়ু৩৯১৮
তেলেঙ্গানা১৭
ত্রিপুরা
নাগাল্যান্ড
পশ্চিমবঙ্গ৪২১৬
পাঞ্জাব১৩
বিহার৪০১৬
মণিপুর
মধ্যপ্রদেশ২৯১১
মহারাষ্ট্র৪৮১৯
মিজোরাম
মেঘালয়
রাজস্থান২৫১০
সিক্কিম
হরিয়ানা১০
হিমাচল প্রদেশ
দিল্লি
আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ-
চণ্ডীগড়-
দমন ও দিউ-
দাদরা ও নগর হাভেলি-
পুদুচেরি
লাক্ষাদ্বীপ-
মনোনীত সদস্য১২
মোট৫৪৫২৪৫